শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:১৪ অপরাহ্ন

নোটিশঃ-
রাজৈর নিউজের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম নিত্যনতুন সকল সংবাদ পড়তে আমাদের সাথেই থাকুন
সর্বশেষ সংবাদঃ-
শিবচরে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে মাসকলাই বীজ ও সার বিতরন মাদারীপুরে সাংবাদিকদের প্রধানমন্ত্রীর অনুদান বিতরণ রাজৈরের শংকরদী মধ্যপাড়া গ্রামে মানসিক ভারসাম্যহীনকে কুপিয়ে হত্যা,রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ ১০দিন পর কাঠালবাড়ি -শিমুলিয়া নৌরুটে ট্রায়ালে ৩টি ফেরি পার, একটি আটকালো ডুবোচরে ,রাতেই বন্ধ ঢাকা-খুলনা এক্সপ্রেস হাইওয়ের শিবচরে ভুল লেনে প্রাইভেটকার, প্রান গেল স্কুল ছাত্রীর রাজৈরের টেকেরহাট বন্দরে গৃহবধূর রহস্যজন মৃত্যু শিবচরে বিট পুলিশিং কার্যক্রম উদ্বোধন রাজৈর উপজেলায় ৪শ কেজি পোনা মাছ অবমুক্তকরণ রাজৈরে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস পালিত রাজৈরে পৌরসভার পক্ষ থেকে ইউএনও সোহানা নাসরিনকে বিদায় সংবর্ধনা
টেকেরহাট বন্দরে লকডাউন উপেক্ষা করে ঈদ কেনাকাটায় মানুষের ঢল

টেকেরহাট বন্দরে লকডাউন উপেক্ষা করে ঈদ কেনাকাটায় মানুষের ঢল

News Pic  T t (2)

add 720x200

রাজৈর (মাদারীপুর) প্রতিনিধিঃ করোনা ভাইরাসের সংক্রমন এড়াতে মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলায় নতুন করে লকডাউন কার্যকর করে জেলা প্রশাসক। নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকান ব্যতিত সকল দোকানপাট বন্ধ ঘোষনা করলেও বাস্তবে তা মানা হচ্ছে না। তবে চিত্র উপজেলার টেকেরহাট বন্দরের ভিন্ন ভোর ৪টা থেকে সকাল ৯টা প্রর্যন্ত চলে ব্যাপক বেচাকেনা। মিল্ক ভিটা সড়কের দুই পাশের মার্কেট, ফুটপাতসহ বিভিন্ন দোকানে মানুষের ঢল। স্বাস্থ্যবিধি তোয়াক্কা না করে দোকান গুলোতে ক্রেতাদের ভির চোখে পড়ার মত। ক্রেতাদের ঢল দেখে সচেতন মহলে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

News Pic  T t (1)

তবে ৯ টার পর বাজারে কৌশলে কোথাও প্রকাশ্যে প্রকাশ্যে সকাল ধরনের দোকানই খোলা রাখা হচ্ছে। নতুন করে মালামাল উঠানোয় ব্যবসায়ীরা দোকান খুলে দেয়ার দাবী জানিয়েছেন। শনিবার থেকে নতুন করে রাজৈর উপজেলায় নতুন করে লকডাউন ঘোষনা করে জেলা প্রশাসন। তবে নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকান ছাড়াও জামা কাপড় গামের্ন্টসসহ সকল দোকানপাটই খোলা দেখা গেছে। তবে পুলিশ আসার পর অনেক দোকানীই সটকে পড়ে। পুলিশের কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনীর মাঝেও মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার ক্রেতাদের ঢল চোখে পড়ে। অনেক দোকানীকে শাটার বন্ধ করে ভেতরে ক্রেতা নিয়ে বেচাকেনার চেষ্টা করতে দেখা যায়।

এসময় পুলিশ দফায় দফায় অভিযান চালায়। কোথাও প্রকাশ্যে ও কোথাও কৌশলে দোকান খোলা রাখার প্রবনতা দেখা গেছে। টেকেরহাট বন্দরে খাবার ও চায়ের দোকানও খোলা ছিল। এদিকে জেলার রাজৈর উপজেলার ঐহিত্যবাহী টেকেরহাটেও বেচাকেনার কার্যক্রম ছিল অনেকটা প্রকাশ্যেই। জামা কাপড়, জুতা, খাবার হোটেলই সবই প্রকাশ্যে খোলা দেখা গেছে। একই ধারা দেখা গেছে । এদিকে উপজেলায় কাচাবাজার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকান খোলা ছিল ৭টা থেকে ১১টা ও অন্যান্য দোকান খোলা সকাল ১০ টা থেকে ৪ টা। তবে প্রত্যন্ত এলাকা ছাড়া অন্য বাজারগুলোতে দফায় দফায় পুলিশি তৎপরতা ছিল ৯ টা থেকে চোখে পড়ার মতো।

Comments

comments

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

add 720x200

Leave a Reply




add 300x600

উন্নয়ন সহযোগীতায়ঃ- সেভেন ইনফো টেক