বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৯:১৪ অপরাহ্ন

নোটিশঃ-
রাজৈর নিউজ অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে আপনাদের স্বাগতম। নিত্যনতুন সকল সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।ফেসবুক পেইজ থেকে আমাদের নিউজে চোখ রাখুন:- https://www.facebook.com/rajoirnews  তাছাড়া সংবাদ এর ভিডিও দেখুন ইউটিউব থেকে  BanglaNews Tube
সর্বশেষ সংবাদঃ-
রাজৈরে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন,৪ জনকে জরিমানা শিবচরে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রন হারিয়ে এক যুবক নিহত করোনায় লকডাউনঃশিবচরে নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরন রাজৈরের কাঁচাবালি গ্রামে যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার  লকডাউনের ঘোষনায় শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে দক্ষিনাগামী যাত্রীদের ঢল শিবচরে করোনা মোকাবেলায় কমিউনিটি ভিত্তিক কার্যক্রম বাস্তবায়নে অবহিতকরন সভা অনুষ্ঠিত ভূমি অফিসের ৪০ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বেতন ভাতাদি ২ মাস যাবৎ বন্ধ রাজৈরে বৈরাগীর বাজার পেরি ফেরি করার নামে লক্ষ লক্ষ টাকা আদায়ের অভিযোগ  সোমবার লকডাউনঃস্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা নেই, বাড়তি ভাড়া গুনে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার রুটে যাত্রী ও যানবাহনের উপচেপড়া ভীড়  রাজৈরে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার জের ধরে আওয়ামীলীগের দু-গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে ১০ জন আহত,বাড়ীঘর ও দোকানপাট ভাংচুর
মাদারীপুর চিকিৎসকের অবহেলায় প্রসূতি মৃত্যুর অভিযোগ

মাদারীপুর চিকিৎসকের অবহেলায় প্রসূতি মৃত্যুর অভিযোগ

Madaripur  09-10-2020 (Wrong Treatment Dead) Pic.

add 720x200

সাগর হোসেন তামীমঃমাদারীপুর শহরের ডিজিটাল এ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসকের অবহেলায় প্রসূতি মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার জন্যে শহরের প্রভাবশালী একটি মহল চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তবে প্রসূতির স্বজনরা হাসপাতালের সামনে দোষীদের বিচারের দাবীতে অবস্থান নিয়েছে। মাদারীপুর সদর থানা পুলিশ মোতায়ন আছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুরের ডাসার থানার আটিপাড়া গ্রামের রুনা আক্তার (২২) নামে এক আন্তঃসত্তার প্রসব বেদনা উঠলে শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে ডিজিটাল এ্যাপোলো হাসপাতালে নিয়ে আসে। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ওই হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. ফায়সাল কাবীর ও ডা. ফারজানা আফিয়া মেঘলা ওই প্রসূতিকে সিজার করে একটি পুত্র সন্তান ভূমিষ্ঠ করে। এসময় প্রসূতির রক্ত প্রয়োজন বলে তার স্বামী রমজান মালকে অন্যত্র পাঠিয়ে দেয়। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ প্রসূতির অবস্থার বেগতির বলে নিজেরাই একটি এ্যাম্বুলেন্সে তুলে ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। পরে ফরিদপুর মেডিকেল কর্তব্যরত চিকিৎস দেড় থেকে দুই ঘন্টা আগে প্রসূতি মারা গেছে বলে জানান। স্বজনরা রুনা আক্তারের মরদেহ নিয়ে পুনরায় ডিজিটাল এ্যাপোলো হাসপাতালে নিয়ে আসে। তখন ডিজিটাল এ্যাপোলো হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনিরুজ্জামান মনির ৫০ হাজার টাকা দিয়ে মৃতদেহটি দাফন করতে বলেন। কিন্তু বিয়ষটি স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীরা পুলিশকে জানালে সন্ধ্যার দিকে সদর থানা পুলিশ এসে বিষয়টি তদন্ত শুরু করে।

নিহতের স্বামী রমজান মাল জানান, ‘আমাকে রক্ত আনার কথা বলে হাসপাতালে লোকজন নিজেরাই আমার স্ত্রীকে ফরিদপুর পাঠিয়ে দেয়। তারা কোন কাগজপত্র দেয়নি। পরে ফরিদপুর গিয়ে জানাছি, ডিজিটাল এ্যাপোলো হাসপাতালে সিজার করার সময়েই আমার স্ত্রীকে মেরে ফেলছে। তারা আমাকে ৫০ হাজার টাকা দিয়ে বিষয়টি কাউনে না জানানো জন্যে অনুরোধ করে। আমি টাকা চাই না, দোষীদের বিচার চাই।’

তিনি আরো জানান, সিজার করার সময় এনেস্থিশিয়া ডাক্তার ছিল না। ফলে আমার স্ত্রীকে ভুল চিকিৎসা করে মেরে ফেলেছে।’

তবে ডিজিটাল এ্যাপোলো হাসাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনিরুজ্জামান মনির ভুল চিকিৎসার কথা অস্বীকার করে বলেন, ‘রোগীর প্রেসার বেশি থাকায় চিকিৎস তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রের্ফাড করে। সেখানে গিয়ে রোগী মারা গেছে। আমাদের কোন অবহেলা ছিল না।’ আর টাকা দিয়ে বিষয়টি ধামাচাপার বিষয় বলেন, ‘রোগী গবীর হওয়ায় দাফন-কাফনের জন্যে ৫০ হাজার টাকা দেয়া হয়েছিল।’

এব্যাপারে মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল হান্নান মিয়া জানান, ‘নিহতের পরিবার থেকে লিখিত অভিযোগ দিয়ে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

সিভিল সার্জন ডা. শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বিষয়টি আমার জানা নেই। যদি নিহতের স্বজনরা অভিযোগ করে, তাহলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

Comments

comments

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

add 720x200

Leave a Reply




add 300x600

উন্নয়ন সহযোগীতায়ঃ- সেভেন ইনফো টেক