বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১, ০৯:১৪ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ-
রাজৈর নিউজের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম নিত্যনতুন সকল সংবাদ পড়তে আমাদের সাথেই থাকুন
সর্বশেষ সংবাদঃ-
টাকা ছাড়া কোন সেবা মেলেনা! রাজৈরে আমগ্রাম ইউ,পি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রকাশ করে ৯ ইউপি সদস্যের সংবাদ সম্মেলন মুকসুদপুরে চাঞ্চল্যকর ব্যবসায়ী মঙ্গল সরদার হত্যার শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন ও ঝাড়ু মিছিল  রাজৈরে খাদ্যের নিরাপদতা শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত  রাজৈরে ভ্যান চালকের প্রচেষ্টায় প্রতিবন্ধি বিদ্যালয় স্থাপিত রাজৈরের টেকেরহাটে বীর মুক্তিযোদ্ধার বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের জমি দখলের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন রাজৈরের টেকেরহাট বন্দরে হার্ডওয়ারের দোকানে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড ৬০ লক্ষ টাকার ক্ষতি দেশের “১০ উপজেলায়” শিল্পকলা একাডেমির মুক্ত মঞ্চে ২ দিন ব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব শিবচরে দুই গ্রুপের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচীঃ রাজৈরে শান্তিপুর্ন ভাবে ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত র‌্যাব সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে  ৫০০ এতিম শিশুদের মধ্যে খাদ্য বিতরণ রাজৈরে প্রবাসী সমাজ কল্যাণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে কম্বল বিতরণ
রাজৈরে ভ্যান চালকের প্রচেষ্টায় প্রতিবন্ধি বিদ্যালয় স্থাপিত

রাজৈরে ভ্যান চালকের প্রচেষ্টায় প্রতিবন্ধি বিদ্যালয় স্থাপিত

Rajoir news pic 11.1

add 720x200

বিনয় জোয়ারদার, রাজৈর, মাদারীপুরঃ মাদারীপুর জেলার রাজৈর উপজেলার শাখারপাড় গ্রামের ভ্যান চালক সেলিম শরীফের প্রচেষ্টায় প্রতিবন্ধি কল্যাণ সংস্থা ও বিদ্যালয় তৈরী হয়েছে। ২০১৮ সালে তিনি নিজস্ব অর্থায়নে নিজ গ্রাম শাখারপাড়ে একটি ঘর ভাড়া নিয়ে এর কার্যক্রম শুরু করেন। বর্তমানে বিদ্যালয়ের নামে জায়গা ক্রয় করে সেখানে কার্যক্রম চলছে। করোনার কারনে বিদ্যালয়ের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় আজ সোমবার উদ্বোধন করা হয়েছে।

এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, ভ্যান চালক সেলিম শরীফ ২০১৮ সালে প্রতিবন্ধি কল্যান সংস্থা গড়ে তোলেন । এর মাধ্যমে তিনি বিভিন্ন এলাকার প্রতিবন্ধি শিশুদের খাবার, কাপড়-চোপড় এবং হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা করে থাকেন। তার এই কাজে প্রথম সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন রাজৈর পৌর মেয়রের সহধর্মিনী মুক্তা নেওয়াজ। মুক্তা নেওয়াজ বিভিন্ন জাতীয় দিবস ও বিশেষ বিশেষ দিবসে প্রতিবন্ধি শিশুদের ভাল খাবার এবং হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা করেছেন। সেলিম শরীফের এই মহতী কাজে একে একে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন এলাকাবাসী এবং এলাকার প্রবাসীরা। এতে তার মনে আরও আগ্রহের সৃষ্টি হয়। তিনি প্রতিবন্ধি শিশুদের জন্য বিদ্যালয় তৈরীর স্বপ্ন দেখতে থাকেন। এক সময় নিজের ভ্যান চালানো অর্থ দিয়ে শাখারপাড় গ্রামে একটি ঘর ভাড়া নিয়ে প্রতিবন্ধি কল্যাণ সংস্থার কার্যালয় এবং বিদ্যালয়ের কার্যক্রম শুরু করেন। সেখানে ক্রমে ক্রমে প্রতিবন্ধি শিশুদের সংখ্য বাড়তে থাকে। বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে প্রতিবন্ধির সংখ্যা ২১২ জন। রয়েছেন ১৮ জন শিক্ষক এবং ৬ জন কর্মচারী। তার ভাড়া ঘরটিতে সংকুলান না হওয়ায় সেলিম শরীফ সকলকে নিয়ে বিদ্যালয়ের নিজস্ব জায়গার প্রযোজনীয়তা জানান দেন। তার প্রস্তাবে রাজী হয়ে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারী, এলাকাবাসী ও প্রবাসীদের সহায়তায় শাখারপাড় গ্রামের মধ্যপাড়ায় বিদ্যালয়ের জন্য ২৩ শতাংশ জমি ক্রয় করা হয়। সেখানে একটি টিন শেড ঘর তৈরী করে ২০২০ সালের শুরু থেকে বিদ্যালয়ের কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। শুধু লেখাপড়াই না, সেখানে প্রতিবন্ধিদের হাতে কলমে শিক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে। বিদ্যালয়টিতে প্রাক প্রাথমিক থেকে শুরু করে তৃতীয় পর্যন্ত পাঠদানের ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়াও প্রতিবন্ধিদের জন্য সেলাই প্রশিক্ষণ,মোমবাতি তৈরী, নকশি কাঁথা সেলাই, এলইডি বাল্ব সেটিং এবং কাগজের ঠোঙা বানানোর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়ে থাকে।

এলাকাবাসী জানায়, সেলিম শরীফ আমাদের প্রতিবন্ধি শিশুদের জন্য মহৎ একটি উদ্যোগ গ্রহন করেছে। তিনি ২৪ জন শিক্ষক কর্মচারী দিয়ে আমাদের শিশুদের কাজ করে খাওয়ার উপযোগী করে গড়ে তুলছেন। আমারা তার কাছে কৃতজ্ঞ। সরকার যদি বিদ্যালয়টি এমপিওভূক্ত করে দেয় তাহলে আমাদের আর কোন চিন্তা থাকবে না।

বিদ্যালয়ের প্রতিবন্ধি ছাত্র শাহরিয়ার জানায়, আমাদের বিদ্যালয়ে যাওয়ার জন্য রাস্তা এবং ব্রীজ দরকার।

প্রধান শিক্ষিকা খাদিজা আক্তার জানান, আমরা এখানে বাক, শ্রবণ, দৃষ্টি, শারিরীক, সেরিব্রাল পালসি, অটিজম ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধিদের শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকি। আমরাও মানবেতর জীবন যাপন করে থকি। সরকারের কাছে দাবি যেন আমাদের বিদ্যালয়টি এমপিওভূক্ত করা হয়।

শাখারপাড় প্রতিবন্ধি কল্যাণ সংস্থা ও বিদ্যায়ের প্রতিষ্ঠাতা ভ্যান চালক সেলিম শরীফ জানান, নিজের মনের আগ্রহ থেকেই আমি এটি করেছি। কষ্টার্জিত পয়সা ব্যয় করে ওদেরকে প্রতিষ্ঠিত করাই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

রাজৈর উপজেলা প্রতিবন্ধি বিষয়ক কর্মকর্তা নয়ন মনি বিশ্বাস জানান, আমরা পূর্বেও হুইল চেয়ারসহ বিভন্ন জিনিষ দিয়ে সহযোগিতা করেছি। আজও ৩ টি হুইল চেয়ার দেওয়া হল। ভবিষ্যতেও এদের জন্য সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন জানান, এটি একটি মহতী উদ্যোগ। এ ব্যাপারে আমি তাদেরকে সব ধবনের সহযোগিতা করব।

Comments

comments

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

add 720x200

Leave a Reply




add 300x600

উন্নয়ন সহযোগীতায়ঃ- সেভেন ইনফো টেক