মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০:৫৮ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ-
রাজৈর নিউজ অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে আপনাদের স্বাগতম। নিত্যনতুন সকল সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।ফেসবুক পেইজ থেকে আমাদের নিউজে চোখ রাখুন:- https://www.facebook.com/rajoirnews  তাছাড়া সংবাদ এর ভিডিও দেখুন ইউটিউব থেকে  BanglaNews Tube
সর্বশেষ সংবাদঃ-
রাজৈরে ভ্যানের জন্য যুবককে কুপিয়ে হত্যা মন্দিরে হামলা ও হিন্দুদের বাড়িঘর অগ্নিসংযোগে পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় দোষীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবীতে মাদারীপুরে গণ অনশন কর্মসূচী পালিত রাজৈরে অজ্ঞাত যুবকের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ শিবচরে চুরি হয়ে গেলো প্রাচীন শতবর্ষী নিদর্শনটি! রাজৈরে ট্রাক-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষ, মোটরসাইকেল আরোহী নিহত  রাজৈরে নতুন ঘর পেল ৪৭টি পরিবার রাজৈরে যথাযগ্য মর্যাদায় শেখ রাসেল দিবস পালিত রাজৈরে স্বামী স্ত্রীর বিষ পান। স্বামীর মৃত্যু। স্ত্রীর অবস্থা আশঙ্কাজনক কুমিল্লায় যে ঘটনাটি ঘটেছে এটি স্পষ্টভাবে বোঝা যায় এটি একটি ষড়যন্ত্র -শাজাহান খাঁন  দেশকে অস্থির করতে কখনো মন্দিরে কখনো মসজিদে ঘটনা ঘটানো হয়- শিবচরে দূর্গাৎসবে চীফ হুইপ লিটন চৌধুরী
শিবচরে শিশু ভাতিজাকে টয়লেটের মেঝেতে পুতে রাখলো চাচী ও চাচাতো বোন, গ্রেপ্তার শেষে ৩ দিন পর উদ্ধার

শিবচরে শিশু ভাতিজাকে টয়লেটের মেঝেতে পুতে রাখলো চাচী ও চাচাতো বোন, গ্রেপ্তার শেষে ৩ দিন পর উদ্ধার

Shibchar Murder  Kutubuddin-1

add 720x200

প্রদ্যুৎ কুমার সরকারঃ মাদারীপুরের শিবচরে অপহরনের ৩ দিন পর পাশর্^বর্ত্তী শরীয়তপুরের জাজিরায় চাচার বাড়ির ভবনের নির্মানাধীন টয়লেটের মেঝের নীচ থেকে বালু চাপা শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আপন বড় চাচী নার্গিস আক্তার দেখিয়ে দিলে শুক্রবার ভোর রাতে ২ বছর ৪ মাসের শিশুটির লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। নির্মম এ হত্যাকান্ডে চাচী নার্গিস আক্তার ও চাচাতো বোন হাফসা আক্তারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

স্থানীয় , পারিবারিক ও মামলার সুত্রে জানা যায়, শিবচরের কাঠালবাড়ি ইউনিয়নের বাংলাবাজার এলাকার ওহাব বেপারির বড় ছেলে আবুল হোসেন বেপারির মৃত্যুর পর তার স্ত্রী নার্গিস ২ ছেলে মেয়ে নিয়ে বাবার বাড়ি পাশর্^বর্ত্তী শরীয়তপুরের জাজিরার নাওডোবা এলাকাতে বসবাস করে। স্বামী পীরের বাড়িতে গিয়ে মারা গেলেও নার্গিস এ মৃত্যুর জন্য শশুরসহ ওই বাড়ির লোকদের দায়ী করতো। এছাড়াও স্বামীর মৃত্যুর পর তার ছোট ভাই ইসমাইল বেপারিকে নার্গিস বিয়ে করতে চাইলে পরিবারটি এতে রাজী হয়নি। উভয় ঘটনার সাথে জমিজমা নিয়েও বিরোধ ছিল এদের মাঝে। গত মঙ্গলবার ওহাব বেপারির বাড়িতে বেড়াতে আসে নার্গিস আক্তারের মেয়ে হাফসা আক্তার(১৪)।পরদিন বুধবার সকালে মা নার্গিস ফোন দিলে মেয়ে হাফসা বাড়িতে রওনা করে । চলে যাওয়ার আগে হাফসা চাচা ইসমাইল বেপারির স্ত্রী ময়না বেগমের কাছ থেকে তার একমাত্র শিশু সন্তান কুতুবউদ্দিনকে কোলে নেয়। ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে হাফসা কুতুবউদ্দিনকে নিয়ে সটকে পড়ে। সন্তানসহ ভাবী ও হাফসাকে বাড়িতে গিয়েও না পেয়ে কুতুবউদ্দিনের বাবা ইসমাইল বেপারি শিবচর থানায় অভিযোগ করে। অভিযোগ পেয়ে শিবচর থানার একাধিক টিম মাঠে নামে। একটি মাদ্রাসার সিসিটিভি দেখে পুলিশ নিশ্চিত হয় হাফসা কুতুবউদ্দিনকে নিয়ে তার মা নার্গিসের কাছে দেয়। নার্গিস শিশুটিকে কাপড়ে ঢেকে সটকে পরে। কিন্তু কোন কিছুতেই নার্গিস বিষয়টি স্বীকার করছিল না। পরে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের পর নার্গিস তার ঘরের ভেতরের মধ্যে নির্মানাধীন টয়লেটের মাটির নীচে শিশুটিকে পুতে রাখা হয়েছে বলে জানায়। পরে পুলিশ নার্গিসকে নিয়ে শুক্রবার ভোর রাতে তার ঘরের টয়লেটের মেঝেতে পুতে থাকা অবস্থায় কুতুবউদ্দিনের মরদেহ উদ্ধার করে।

শিবচর থানার ওসি মোঃ মিরাজ হোসেন বলেন, নার্গিস মূলত তার স্বামীর মৃত্যুর জন্য তার শশুর বাড়ির লোকদের উপর ক্ষিপ্ত,পরবর্তিতে বিয়ে নিয়েও ক্ষুদ্ধ ছিল। সে তার মেয়েকে দিয়ে শিশুটিকে খুব কৌশলে আনে। আমাদের ধারনা সে ও তার মেয়ে দুজনে মিলে এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে। নার্গিস নিজেই দেখিয়েছি লাশের অবস্থান।

Comments

comments

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

add 720x200

Leave a Reply




add 300x600

উন্নয়ন সহযোগীতায়ঃ- সেভেন ইনফো টেক