শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৩:২৭ পূর্বাহ্ন

নোটিশঃ-
রাজৈর নিউজ অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে আপনাদের স্বাগতম। নিত্যনতুন সকল সংবাদ পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।ফেসবুক পেইজ থেকে আমাদের নিউজে চোখ রাখুন:- https://www.facebook.com/rajoirnews  তাছাড়া সংবাদ এর ভিডিও দেখুন ইউটিউব থেকে  BanglaNews Tube
সর্বশেষ সংবাদঃ-
উপজেলা উপ-নির্বাচনঃ ভোট কেন্দ্রের ভিতরে যাওয়া আসাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ রাজৈরে উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৌকার জয় টেকেরহাট বন্দরে চিকিৎসার অবহেলায় সদ্য ভূমিষ্ঠ শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ,ধামাচাপা দেয়া চেষ্টা রাজৈরের টেকেরহাটে নৌকা প্রতীক পোড়ানোর প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল  রাজৈরে নৌকা প্রতীক পোড়ানোর অভিযোগে মামলা দায়ের। আওয়ামীলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে নৌকার পক্ষে কাজ না করার অভিযোগ শিবচরে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে নবম শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষন, ধর্ষক গ্রেফতার মাথায় মাফলার পেচানোর সময় ছোয়া রাজৈরে দুই গ্রামবাসির মধ্যে রক্ষক্ষয়ী সংঘর্ষ,দোকানপাট ভাংচুর,পুলিশের শর্টগানের গুলি ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ,৪০ জন আহত রাজৈরে প্রতিবন্ধী শিশুদের মাঝে নতুন বই ও শীতবস্ত্র বিতরণ রাজৈরে ৩দিন ব্যাপী শীতকালীন মেয়েদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন রাজৈরে ট্রাক ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে যুবক নিহত,আহত ২
শিবচরে সাড়ে ৩ শ কোটি টাকা ব্যয়ে আড়িয়াল খা নদীর তীর সংরক্ষন ও ড্রেজিং প্রকল্পের কাজ উদ্বোধন করলেন চীফ হুইপ ও দুই মন্ত্রী

শিবচরে সাড়ে ৩ শ কোটি টাকা ব্যয়ে আড়িয়াল খা নদীর তীর সংরক্ষন ও ড্রেজিং প্রকল্পের কাজ উদ্বোধন করলেন চীফ হুইপ ও দুই মন্ত্রী

Shibchar Chief whip & 2 Minister badh open-3

add 720x200

শিব শংকর রবিদাসঃ প্রায় সাড়ে ৩ শ কোটি টাকা ব্যয়ে মাদারীপুরের শিবচরে নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধে আড়িয়াল খা নদীর তীর সংরক্ষন ও ড্রেজিং প্রকল্পের উদ্বোধন করা হয়েছে। শনিবার বিকেলে প্রকল্পটি উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ নূর-ই আলম চৌধুরী, পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি ও পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম। বক্তব্যকালে অতিথিরা নদী ভাঙ্গনের জন্য অবাধে বালু উত্তোলনকে দায়ী করে এটি রোধের আহ্বান জানান। প্রকল্পটি উদ্বোধনের আগে নদী ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করে বাধ নির্মানের নির্মান সামগ্রী যাচাই করেন চীফ হুইপ ও উপ মন্ত্রী।

জানা যায়, জেলার শিবচর উপজেলার আড়িয়াল খা নদীর ভাঙ্গন প্রতিরোধ ও নদীর প্রবাহ এবং নাব্যতা স্বাভাবিক রাখতে গত বছরের ২৮ জানুয়ারী একনেক সভায় আড়িয়াল খা নদীর তীর সংরক্ষন ও ড্রেজিং প্রকল্পের অনুমোদন হয়। চলতি বছরের ২৭ মে সরাসরি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রীসভা কমিটি প্রকল্পটি চুড়ান্ত অনুমোদন করেন। প্রায় ৩ শ ৬৬ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটির গত ২৩ জুন কার্যাদেশ প্রদান করা হয়। ৬.৩০০ কি.মি নদীর তীর প্রতিরক্ষা কাজে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ১ শ ৮১ কোটি টাকা ও ১৪.৭৫০ কি.মি. ড্রেজিং কাজে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ১ শ ৮৫ কোটি টাকা। প্রকল্পের আওতায় আড়িয়াল খাঁ নদের বাম তীরে সন্ন্যাসীরচর ইউনিয়নে ২.৮০০ কি.মি, বহেরাতলা ইউনিয়নের নদী তীরের ১ কি.মি, ডান তীরে শিরুয়াইল ও নিলখী ইউনিয়নের ২.৫০০ কি.মি পথসহ মোট ৬.৩০০ কি.মি নদী সংরক্ষন কাজ এবং আড়িয়াল খাঁ নদের উৎরাইল হাট বাওরের ইনটেক চ্যানেল পর্যন্ত মোট ১৪.৭৫০ কি.মি পথ ড্রেজিং করা হবে। ২০২৩ সালের ৩১ মে তারিখের মধ্যে কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। শনিবার বিকেলে উপজেলার শিরুয়াইল ইউনিয়নের চরশ্যামাইল এলাকায় আড়িয়াল খা নদীর পাড়ে প্রকল্পটি উদ্বোধনের আয়োজন করে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড। এসময় প্রকল্পটি জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ নূর-ই আলম চৌধুরী, পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি ও পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ নূর-ই আলম চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি, পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম এমপি, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক ফজলুর রশিদ, পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের যুগ্ন সচিব এস.এম রেজাউল মোস্তফা কামাল, মাদারীপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুনির চৌধুরী, মাদারীপুর পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন।

পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম এমপি বলেন, সবাই জানে বিএনপি দূর্নিতীবাজ। আবার বিএনপি ক্ষমতায় গেলে তারেক জিয়া, খালেদা জিয়া দেশটাকে লুটেপুটে খাবে। হাওয়া ভবন সৃষ্টি করবে। হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে মানি লন্ডারিং করবে। আর বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ দেশে পদ্মা সেতু হচ্ছে। মেঘনা সেতু নির্মানের সম্ভাব্যতা যাচাই হচ্ছে। আমার নির্বাচনী এলাকা শরিয়তপুরসহ চাঁদপুর, এই বৃহত্তর ফরিদপুর হয়ে যাবে বাংলাদেশের সর্বশ্রেষ্ট একটি অংশ।

পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি বলেন, আপনারা দেখেন যে প্রায়ই নদী ভাঙ্গন হয়। কিন্তু নদী ভাঙ্গন কেন হয় জানেন ? প্রতিটি এলাকার অসাধু ব্যবসায়ীরা নদ থেকে বালু উত্তোলন করে। নদীর পাড় থেকে বালু উত্তোলন করা হলে নদী ভাঙ্গবেই। তাই আমরা যতই প্রতিরক্ষা বাঁধ নির্মান করি না কেন লাভ হবে না আগে বালু উত্তোলন বন্ধ করতে হবে।

চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী নদী ভাঙ্গন রোধে প্রকল্পটি গ্রহন করায় প্রধানমন্ত্রী ধন্যবাদ জানিয়ে প্রতিমন্ত্রীর সাথে একমত পোষন করে বলেন, সরকারি মেগা প্রকল্পর জন্য বালু উত্তোলন করতে হলে আগেই একনেক সভায় সিদ্ধান্ত নিতে হবে কোথা থেকে বালু করা হবে। এছাড়া সব ধরনের বালু উত্তোলন বন্ধ করে দিতে হবে। জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানান তিনি।

Comments

comments

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

add 720x200

Leave a Reply




add 300x600

উন্নয়ন সহযোগীতায়ঃ- সেভেন ইনফো টেক